শিরোনাম

জেএসএস কর্তৃক বৌদ্ধ বিহারে আগুন

রাঙ্গামাটি সংবাদদাতা: ১৬ মে শপিং ২.০০ টার দিকে রাঙামাটি জেলার বিলাইছড়ি উপজেলাধীন ১নং বিলাইছড়ি ইউনিয়নের (৭নং ওয়ার্ড) ধূপশীলপাড়া এলাকায় ড. এফ. দীপংকর ভান্তে পরিচালিত ধুপশীল আন্তর্জাতিক বিদর্শন ভাবনা কেন্দ্রে (বৌদ্ধ বিহার) জেএসএস (মূল) এর ১০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী গভীর রাত্রে এসে কোন প্রকার কথা বার্তা ছাড়াই আগুন লাগিয়ে দিলে উক্ত ভাবনা কেন্দ্রের সব কিছু পুড়ে যায়। এসময় ভাবনা কেন্দ্রের ভিতরে থাকা এক সেবকেও বেদম মারধর করে জেএসএসের সন্ত্রাসীরা, আগুন লাগিয়ে দেওয়ায় আনুমানিক ৪৫/৪৭ লক্ষ টাকার সমপরিমাণ ক্ষয় ক্ষতি হয়েছে বলে জানা যায়। এছাড়া বিহারে আগুন দেওয়ায় আশে পাশের আরো কিছু বসতবাড়িও পুড়ে ছাই হয়ে যায়। যেহেতু ড. এফ. দীপংকর একজন বাঙালী ভান্তে এবং একারনে জেএসএস (মূল) এর সাথে উক্ত ভাবনা কেন্দ্র নিয়ে পূর্ব থেকেই বিরোধ চলে আসছিল তাই তারা উক্ত আগুন লাগিয়ে দিতে পারে বলে ধারনা করছে স্থানীয়রা। পরবর্তীতে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে নিরাপত্তা বাহিনী যায়। এখানে উল্লেখ্য, শন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস দীর্ঘদিন ধরেই ঐ এলাকায় দীপংকর ভান্তের দ্বারা স্থাপনকৃত ভাবনা কেন্দ্রের বিরোধীতা করে আসছিলো। জেএসএস’র বিলাইছড়ি উপজেলার সাধারণ সম্পাদক রাহুল চাকমা দীর্ঘদিন ধরে এই ভাবনা কেন্দ্রের স্থাপন নিয়ে সমালোচনা করে আসছিলো। তাই বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের এই ভাবনা কেন্দ্রে আগুন দেওয়ার পেছনে জেএসএসে’র হাত রয়েছে বলে ধারনা এলাকাবাসীর। বাঙালী ভান্তে হিসেবে স্থানীয় চাঁদবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডে জেএসএস (মূল)কে সহযোগিতা না করায় পূর্ব রোষানলের জেরে উক্ত ঘটনা ঘটাতে পারে বলে মন্তব্য করে এলাকাবাসী। এর আগে ২০১৮ সালেও জেএসএস দীপংকর ভান্তে ও তার ভক্তদের হুমকী ধমকী দেয় এলাকা ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language