শিরোনাম

থানছিতে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ইটভাটা নিরব প্রশাসন

মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম: বান্দরবান জেলা প্রতিনিধি:
বান্দরবানে থানছি উপজেলায় হেডম্যান পাড়া এলাকায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে বিশাল ইটভাটা। হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫০০ ফুট দুরত্বে স্থাপন করা হয়েছে এসবিএম ইটভাটা।পরিবেশ দুষণ এ ইটভাটার ধোঁয়া,ধুলাবালি ও শব্দদুষণ বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের পাঠদানের সমস্যার শেষ নেই। ইটভাটা থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয় ২০০ ফুট পাহাড়ের উপর অবস্থিত। এ ইটভাটা পরিবেশ ক্ষতিকর কম উচ্চতার অস্থায়ী ড্রাম চিমনী থেকে নির্গত কার্বনডাই অক্সাইড বিদ্যালয়ের কোমলমতি ছাত্র ছাত্রীদের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। বিদ্যালয়ের পাশে ইটভাটা যে কোন ধরনের দুর্ঘটনা নিয়ে শংকিত ছাত্র ছাত্রীর অভিভাবক। ছাত্র ছাত্রীদের দুর্ঘটনা ও জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক ও শংকিত শিক্ষকরা। এ ইটভাটার পাশে রয়েছে বৌদ্ধ মন্দির ও হেডম্যান পাড়া। ইটভাটার আধা কিলোমিটার দুরত্বে রয়েছে বন বিভাগের সৃজনশীল বন। ইটভাটার বায়ু দুষণ ও ক্ষতিকর প্রাকৃতিক পরিবেশ বৌদ্ধ মন্দির ও হেডম্যান পাড়ার বসবাসকারী জনসাধারনের বিরুপ মনোভাব বিরাজমান রয়েছে। ইটভাটার পরিবেশ দুষণ প্রতিরোধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও হেডম্যান পাড়াবাসীরা প্রতিবাদ করে কোন ধরনের প্রতিকার পায়নি। অপরদিকে পরিবেশ দুষণ এ ইটভাটা নিয়ে এলাকাবসীর অভিযোগের শেষ নেই। পাহাড় কেটে সংগ্রহ করা হয় ইটভাটার মাটি। ইটভাটায় প্রাকৃতিক কয়লা ব্যবহার পরিবর্তে ব্যবহারে সংগ্রহ করা হয় কয়েক হাজার টন জ্বালানী কাঠ। পরিবেশ সংরক্ষণ আইন অমান্য করে পরিচালিত হচ্ছে এ ইটভাটা। ইটভাটা স্থাপন করার ক্ষেত্রে ইটভাটা আইন ও নীতিমালা অনুসরণ করা হয়নি। এ ইটভাটার নেই কোন জেলা প্রশাসনের অনুমতি ও ইটভাটার লাইসেন্স। নেই কোন পরিবেশ অধিদপ্তরের চাড়পত্র। পরিবেশ দুষণ এ ইটভাটা নিয়ে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদপ্তর রয়েছে নিরবতা। এলাকার জনসাধারণ পক্ষ থেকে এ ইটভাটার পরিবেশ দুষণ ঠেকাতে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন ও ইউএনও নিকট অভিযোগ জানানো হলে পরিবেশ রক্ষায় কোন ধরনের আইনি পদক্ষেপ গ্রহন করে নাই।এ ইটভাটা বিষয়ে জানা যায়,হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে এসবিএম ইটভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন। আওয়ামী লীগ নেতা মংথোয়াইম্যা মারমা রনি ও নাছির এ দুজন ব্যবসায় পার্টনার রয়েছে।প্রায় ৪ একর জমিতে ১০ বছর আগে এ ইটভাটা স্থাপন করা হয়।ইটভাটার পাশে রয়েছে বৌদ্ধ মন্দির ও হেডম্যান পাড়া। ইটভাটার আধা কিলোমিটার দুরত্বে রয়েছে বন বিভাগের সৃজনশীল বন। হেডম্যান পাড়া এলাকায় হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ৫০০ ফুট দুরত্বে স্থাপন করা হয়েছে এসবিএম ইটভাটা। ইটভাট থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয় ২০০ ফুট পাহাড়ের উপর অবস্থিত। ইটভাটা নীতিমালা অনুযায়ী ইটভাটায় ১২০ ফুট স্থায়ী চিমনী স্থাপন করা হয়নি। ইটভাটায় ব্যবহার করা হচ্ছে পরিবেশ ক্ষতিকর কম উচ্চতার অস্থায়ী ড্রাম চিমনী। প্রতি বছর পাহাড় কেটে সংগ্রহ করা হয় ইটভাটার মাটি। ইটভাটায় ব্যবহারে সংগ্রহ করা হয় কয়েক হাজার টন জ্বালানী কাঠ। ইটভাটায় কয়লা ব্যবহার পরিবর্তে ব্যবহার করা হয় জ্বালানী কাঠ। ইটভাটায় তৈরী করা হয় নি¤œ মানের ইট যা দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের অন্যান্য ইটের তুলনায় ছোট। এ ইটভাটা দুর্গম হওয়ায় প্রশাসনকে ফাকি দিয়ে পরিশোধ করা হয়না আয়কর ও ভ্যাট। এভাবে সরকারি আয়কর ও ভ্যাট ফাকি দিয়ে চলছে এসবিএম ইটভাটা।
হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চশিউ মারমা জানান, ইটভাটা থেকে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুরত্ব কম হওয়ায় বিভিন্ন সমস্যা থাকার কারনে পাঠদানের সময় ছাত্র ছাত্রীরা অমনোযোগি হয়। ইটভাটা পরিবেশ ক্ষতিকর কার্বনডাই অক্সাইড বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ সৃষ্টি করেছে।বিদ্যালয়ের সামনে ইটভাটার রাস্তায় নিয়মিত ট্রাক আসা যাওয়া করে এ সময়ে ধুলা বালি ও শব্দ দুষণে পাঠদানে সমস্যা সৃষ্টি করে।বিদ্যালয়ের পাশে ইটভাটা যে কোন ধরনের দুর্ঘটনা নিয়ে শংকিত ছাত্র ছাত্রীর অভিভাবক।বিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রীদের দুর্ঘটনা ও জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক ও শংকিত থাকতে হয় শিক্ষকদের।এসবিএম ইটভাটার মালিক আনিসুর রহমান সুজন বলেন,থানছি উপজেলায় বিভিন্ন উন্নয়ন কাজের প্রয়োজনে ও এলাকাবাসীর ইটের চাহিদা থাকায় এ ইটভাটা স্থাপন করা হয়। প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কি সমস্যা হয় আমাকে জানালে সমাধানের চেষ্টা করব।ইটভাটায় কিছু লাকরি ও কিছু কয়লা ব্যবহার করা হয়।সমতল জমি থেকে ইটভাটার মাটি সংগ্রহ করা হয়ে থাকে।দুর্গম এলাকায় ইটভাটা স্থাপনে ইটভাটা আইন ও পরিবেশ সংরক্ষণ আইন মেনে চলা কঠিন তারপরও মেনে চলার চেষ্টা করি।বান্দরবান ইটভাটা মালিক সমিতি সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুছ জানান,থানছিতে স্থাপিত এসবিএম ইটভাটা এ সমিতির সদস্য নয়।এ ইটভাটার বিষয়ে বিস্তারিত কোনও কিছু আমার জানা নেই।এলাকার জনসাধারণ বিভিন্ন সময়ে এ ইটভাটা নিয়ে অভিযোগ জানিয়ে আসছিলো বলে আমি শুনছি। এলাকায় পরিবেশ ভাল রাখতে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন মেনে চলা উচিত।ইটভাটা স্থাপনের ক্ষেত্রে ইটভাটা আইন ও নীতিমালা অনুসরণ করছে না এ ধরনের প্রমান পাওয়া গেলে প্রশাসনই অভিযান চালিয়ে এসবিএম ইটভাটা বন্ধ করে দিতে পারে।বান্দরবানে পরিবেশ অধিদপ্তর দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ক্যামিষ্ট একেএম সামিউল আলম কুরসি জানান, থানছি এসবিএম ইটভাটার পরিবেশ অধিদপ্তরের চাড়পত্র আছে কিনা জানা নেই।ইটভাটা স্থাপনে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন মেনে চলা উচিত। এলাকাবাসী পরিবেশ ক্ষতিকর লিখিত কোন অভিযোগ দিলে আমলে নেয়া হবে। পরবর্তীতে পরিদর্শন করে পরিবেশ আইনে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।থানছি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইউএনও মো: আরিফুল হক মৃদুল বলেন,হেডম্যান পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে এসবিএম ইটভাটার পরিবেশ দুষণ নিয়ে যদি কোনও ধরনের অভিযোগ থাকে যে কেউ লিখিত অভিযোগ করতে পারে।এ ইটভাটার অনিয়ম ও পরিবেশ দুষণের অভিযোগ ভিত্তিতে পরিবেশ সংরক্ষণ আইন ও ইটভাটা আইনে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language