শিরোনাম

বান্দরবান কুহালং বটতলী চেয়ারম্যান পাড়ায় তাফসীরুল কোরআন মাহফিল অনুষ্ঠিত

মুহাম্মদ সাইফুল, বান্দরবান প্রতিনিধি:
আলোর পথিক ইসলামী একতা সংঘ ও এলাকাবাসীর উদ্যোগে বান্দরবান সদর উপজেলার কুহালং ইউনিয়নের বটতলী চেয়ারম্যান পাড়ায় তাফসীরুল কোরআন মাহফিল-২০২০ জুমাবার সন্ধায় অনুষ্ঠিত হয়।মাহফিলে উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত থেকে ইসলামী আলোচনা করেন বান্দরবান ইসলামীয়া সিনিয়র মাদ্রার অধ্যক্ষ মাওলানা বদরুল হক। মাহফিলে প্রধান বক্তা হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা পেশ করেন খুলনা ইসলামিক রির্চাজ সেন্টার এর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক ও এটিএন বাংলার ধর্মীয় আলোচক আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন মুফাচ্ছিরে কোরআন মাওলানা হাফেজ ক্বারী আব্দুল মোত্তালিব আল হোসাইনী। মাহফিলে বিশেষ বক্তা হিসেবে আলোচনা করেন চট্টগ্রাম সাতকানিয়া নুরিয়া বাইতুস সালাম জামে মসজিদের খতিব মাওলা ক্বারী মোহাম্মদ হাসান উদ্দিন। রেইচা জামে মসজিদের খতিব মাওলা ওসমান গনি,চেমিমুখ জামে মসজিদের খতিব মাওলা আব্দুল কাদের মানিক,বটতলী জামে মসজিদের সাবেক খতিব মাওলানা আব্দুল্লাহ। বটতলী চেয়ারম্যান পাড়ায় তাফসীরুল কোরআন মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন বটতলীর সাবেক চেয়ারম্যান আহাম্মেদ হোসেন এর সুযোগ্য পুত্র চট্টগ্রাম লোহাগাড়ার উপসহকারী প্রাণি সম্পদ অফিসার খোরশেদুল আলম চৌধুরী।
মাহফিলে অতিথি হিসেবে ছিলেন কুহালং ইউপি সদস্য ডাঃ নুরুল ইসলাম মেম্বার, গোয়ালিয়া খোলা শাহজালাল জামে মসজিদের সভাপতি হাজ্বী নুরুল ইসলাম চৌধুরী, আব্দুল মাবুদ চৌধুরী বাবুল, দারুসসালাম, ইদ্রিচ সাওদাগর,আয়ুব আলী মাস্টার,হুমায়ন কোম্পানি। মাহফিল বাস্তবায়নে অর্পিত দায়ত্ব পালন করেন আলোর পথিক ইসলামী সংঘ এর প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মুহাম্মদ ইদ্রিচ, কমিটির সদস্য আবুল হাসেম, মো শরিফুল ইসলাম সহ অন্যান্য সদস্যগন। মাহফিলে বক্তারা বলেন, পবিত্র কোরআন হচ্ছে সমগ্র মানব জাতির জন্য মাহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের পক্ষ থেকে পাঠানো একটি সংবিধান,এই মহাগ্রন্থ আল কোরআন অহির মাধ্যমে হযরত জিবরাইল আলাইহিস সালামের মারফতে মহান আল্লাহ আমার প্রিয় নবী নবীদের সরদান হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা(সাঃ)উপর নাজিল করেছেন,তাই মহান আল্লাহ এই মানবজাতিকে সৃস্টির সেরা জীব হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন, এই কোরআনের মধ্যে ইসলাম যে একটি পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা তা প্রকাশ করেছেন মাহান আল্লাহ, ইসলাম একটি শান্তির ধর্ম, ইসলামে জঙ্গীবাদ-সন্ত্রাস, বোমা বাজদের কোন স্থান নেই, মানুষকে অন্যায় ভাবে হত্যা করা ইসলামে হারাম। আমার প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ মুস্তফা (সাঃ) কখনো অন্যায়ের কাছে মাথা নত করেন নি, তিনি চাইলে ইসলামে শত্রুদের বিভিন্ন লোভনীয় প্রস্তাবে রাজি হয়ে আরাম আয়েশের জীবন যাপন করতে পারতেন, কিন্তুু তিনি সেটা না করে অন্যায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করে ন্যায়ের পক্ষে লড়াইকরেছেন, আল্লাহর রাস্তায় সারা বিশ্বের মানুষকে দাওয়াত দিয়েছেন, উম্মতদেরকে বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা দান করেছেন। সারা পৃথিবীর মানুষকে ন্যায়ের পক্ষে থাকার জন্য শিক্ষা দিয়ে গেছেন। পরিশেষে দেশ ও মানব জাতির কল্যানে মাহ্ফিলে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language