শিরোনাম

মহেশখালীতে স্বাস্থ্য কর্মীদের কর্মবিরতি: সেবা বঞ্চিত ৬ লক্ষ মানুষ

কাইমুল ইসলাম ছোটন []

দীর্ঘ ২২ বছরে স্বাস্থ্যকর্মীদের দাবি বাস্তবায়ন না হওয়ার কারণে বেতন বৈষম্য দূরীকরণ, নিয়োগ বিধি সংশোধন, কারিগরি পদমর্যাদা ও ১৩ তম গ্রেডের দাবিতে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি পালন করছেন মহেশখালীতে কর্মরত স্বাস্থ্য পরিদর্শক,সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা। ২৬ নভেম্বর সকাল থেকে মহেশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে এ অবস্থান কর্মবিরতি পালন করছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা। কাজ বন্ধ করে দাবি সম্বলিত ব্যানার নিয়ে সারাদেশে তাদের এই কর্মবিরতি শুরু হয়েছে বলে জানা যায়। কর্মবিরতি সময়ে হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন মহেশখালী উপজেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম বলেন- “চাকরির শুরু থেকে স্বাস্থ্য সহকারীদের ১৬ তম গ্রেড দিয়ে চাকরি শুরু হলেও আজ পর্যন্ত ঐ ১৬ তম গ্রেডই থেকে যায়। পাশাপাশি অন্যান্য বিভাগের একই গ্রেডে কর্মরতদের ১২ তম এবং ১১ তম গ্রেডে উন্নীত হয়েছে। ১৯৯৮ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের দাবি বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিলেও তা এখনো কার্যকর হয়নি। তাই দাবি আদায়ে সারাদেশের ন্যায় আমাদের এই কর্মবিরতি কর্মসূচি।” এদিকে কর্মবিরতি পালন করা স্বাস্থ্য কর্মীরা জানান,দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অনির্দিষ্টকালের জন্য ইপিআই কর্মসূচী বন্ধ থাকবে। দাবি আদায় না হলে আমরা কর্মস্থলে সহজে ফিরে যাব না। দাবি বিষয়ে কাঙ্ক্ষিত সিদ্ধান্ত না পেলে ৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া হামরুবেলা ক্যাম্পেইনও বর্জন করা হবে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য সেবা নিতে আসা রোগীরা জানান, স্বাস্থ্য কর্মীদের এই আন্দোলনের প্রভাব ফেলেছে এই এলাকার সাধারণ মানুষদের উপর। ইতিমধ্যে ইপিআই সেবা নিতে হয়রানিতে পড়ছেন তারা। এই সেবা দীর্ঘদিন বন্ধ থাকলে সেবাপ্রার্থীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে পড়তে হবে বলা যায়। কারণ স্বাস্থ্য কর্মীদের দেয়া সেবা নিয়েই প্রত্যন্ত অঞ্চলের লোকজন স্বাস্থ্য সুবিধা পাচ্ছেন। না হয় সাধারণ মানুষের চিকিৎসা ভার বহন করা কষ্ট হয়ে যাবে।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language