শিরোনাম

যুবদল নেতা ভিপি ইমামের জায়গা দখলে নিয়েছে দুর্বৃত্তরা, আতংকে পরিবার

দাগনভূঞা প্রতিনিধি:
সাবেক ছাত্রদল নেতা ইকবাল মেমোরিয়াল ডিগ্রী কলেজের সাবেক ভিপি ইমাম হোসেনের বাড়ির জায়গা দখল করে নিয়েছে নিজ এলাকার সন্ত্রাসীরা। হামলা ভাংচুর ও শ্লীলতাহানীর অভিযোগও পাওয়া গেছে।
ছাত্র নেতা ইমামের পরিবার সূত্রে অভিযোগ করেন, স্থানীয় শহীদুল্লাহ ওরফে চৌধরিয়া গংদের সাথে পূর্বে থেকে জায়গা জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। ঘটনার দিন সকাল ৬:৩০ মিনিটি পূর্ব পরিকল্পনার অংশ হিসেবে কিছু বহিরাগত সন্ত্রাসীদের নিয়ে শহীদুল্লাহ ওরফে চৌদরী(৫৫), একরাম হোসেন বাহাদুর (৩১), মো: ফারুক (৪২), সাগর (২২),আলা উদ্দিন (৬৫) গিয়াস (২৮)সহ ১০/১২ জনের একটি দল লাঠি সোঠা, দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে আমাদের পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা করে। আমাদের ভোগ দখলীয় দোকানঘর ভাংচুর করে দখল করার চেষ্টা করে। ভাংচুরের খবর শুনে আমাদের পরিবারের সদস্যরা ছুটে আসলে এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমাদের উপর হত্যার উদ্দেশ্য হামলা করে। আমাদের পকেটে থাকা মোবাইল ও টাকা পয়সা নিয়ে যায়। ঘরে রাখা আমার নির্মাধীণ মালামাল লুট করে নিয়ে যায়। যার আনুমানিক মূল্য সর্বমোট ৮ লক্ষ টাকা। আমরা দাগনভূঞা থানায় মামলা দায়ের করি।
স্থানীয়রা জানায়, আনুমানিক সকাল ৬:৩০ মিনিটে শহীদুল্লাহ চোদরি ভাংচুরের আওয়াজ ঘটনা স্থলে গিয়া দেখি কতিপয় সন্ত্রাসী ভিপি ইমামদের দখলকৃত জায়গায় লুটপাট ও ভাংচুর চালায়। ইতিপূর্বে এই রকম একাধিক ঘটনা ঘটায়। তাদের হাতে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র ছিলো।
ভিপি ইমামের পিতা আবুল কাশেম অভিযোগ করে বলেন, সরকার দলের নাম বিক্রি করে এই সন্ত্রাসীরা মানুষের জায়গা লুটপাট করার পাঁয়তারা করছে। ইতিপূর্বে আমাদের উপর হামলা করে শহিদুল্লাহ ওরফে চোদরি গংরা। আমাকে এবং আমার ছেলেদেরকে হত্যা করার চেষ্টা করে কয়েকবার। আমাদের দখলীয় দোকান ও বাউন্ডারী ভেঙ্গে পেলে। আমার পুত্রবধূ ও আমাদের ঘরের নারীদেরকে শ্লীলতাহানি করে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলায় শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশে এমন জোর জুলুম অবিচার চলতে পারেনা। এসব সন্ত্রাসীদের কোন দল নেই। ফারুক ও শহিদুল্লাহ ওরফে চোদরি আন্তজেলা ডাকাত দলের সর্দার। ইতিপূর্বে তারা ডাকাতির মামলায় জেল খেটে এসেছে।
দাগনভূইঁয়া থানার উপপরিদর্শক সুমন বড়ুয়া জানান, দুজন আসামীকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। মালামাল উদ্ধারের চেষ্টা চলছে।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language