Templates by BIGtheme NET
শিরোনাম

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী এহসানুল হক মিলন কারাগারে

সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ও বিএনপির আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক এহসানুল হক মিলনকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

শুক্রবার দুপুরে বিএনপির এ নেতাকে আদালতে হাজির করা হলে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন চাঁদপুরের অতিরিক্তি চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শফিউল আজম।

এর আগে ভোরে চট্টগ্রামের একটি বাসা থেকে মিলনকে গ্রেফতার করে চাঁদপুর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি দল।

গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন এহসানুল হক মিলনের স্ত্রী নাজমুন নাহার।

শুক্রবার সকালে নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে স্ট্যাটাস দিয়ে নাজমুন নাহার বলেন, ‘সাবেক শিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ড. এহসানুল হক মিলনকে ডিবি পুলিশ চট্টগ্রামের চকবাজার থেকে তুলে নিয়ে গেছে, আমরা চাঁদপুর আদালতে আসছি।’

চাঁদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) জিহাদুল কবির যুগান্তরকে বলেন, এহসানুল হক মিলনের বিরুদ্ধে একাধিক মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে তাকে চট্টগ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ডিবি পুলিশের একটি দল চট্টগ্রাম নগরের চকবাজার থানার ৪৫২, চট্টেশ্বরী রোডের ‘মমতাজ ছায়ানীড়’ নামে একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে শুক্রবার ভোররাতে মিলনকে গ্রেফতার করে। ভোর ৫টার দিকে তাকে চাঁদপুরে নেয়া হয়।

চট্টগ্রাম ডিবি পুলিশের উপকমিশনার মো. কামরুজ্জামান যুগান্তরকে বলেন, চাঁদপুর ডিবি পুলিশ চট্টেশ্বরী রোডের ‘মমতাজ ছায়ানীড়’ নামে একটি বাসা থেকে এহসানুল হক মিলনকে গ্রেফতার করেছে। আমরা বিষয়টি অবগত। তাকে গ্রেফতারের পর চাঁদপুরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, তার বিরুদ্ধে চাঁদপুরে আদালতে ২৮টি মামলা বিচারাধীন। গত মঙ্গলবার চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ সরওয়ার আলমের আদালতে একটি জিআর মামলায় হাজির হওয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু আদালতে হাজির হওয়ার আগেই পুলিশ তাকে গ্রেফতার করতে পারে এই ভয়ে মিলন সেদিন আদালতে যাননি।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, এহসানুল হক মিলন বেশ দীর্ঘদিন বিদেশ ছিলেন। বিদেশে যাওয়ার আগে সব মামলায় জামিনে ছিলেন মিলন। কিন্তু দীর্ঘদিন বিদেশে থাকার কারণে এসব মামলায় হাজিরা দিতে পারেননি। এ জন্য ২৬টি মামলায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত।

এদিকে একাদশ নির্বাচনে একজন প্রার্থী হিসেবে আদালতে হাজিরার সময় নিরাপত্তা চেয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) কাছে আবেদন করেছেন এহসানুল হক মিলন।

গত রোববার বিকালে মিলনের চিঠিটি ইসিতে নিয়ে যান তার স্ত্রী নাজমুন নাহার বেবী। তিনি প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার কাছে চিঠিটি পৌছে দেন। চিঠিতে আদালতে হাজিরা দিতে নিরাপত্তা চাওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চাঁদপুর-১ (কচুয়া) আসনে বিএনপি থেকে নির্বাচন করতে চান মিলন। তিনি মনোনয়নপত্রও কিনেছেন।


Print pagePDF pageEmail page
Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*