Templates by BIGtheme NET
শিরোনাম
মিরপুরের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ তল্লাশি, বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার

মিরপুরের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ তল্লাশি, বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার

মিরপুরের মাজার রোডের ‘জঙ্গি আস্তানায়’ তল্লাশি অব্যাহত রেখেছে র‌্যাব। ওই বাড়ির ছয় তলায় থাকা বিপুল সংখ্যক ফ্রিজে বোমা তৈরির সরঞ্জাম রয়েছে কি না তা দেখতেই এ অভিযান।

শুক্রবার দুপুরে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জানান, বৃহস্পতিবার ষষ্ঠ তলার একটি অংশে তল্লাশি সম্পন্ন হয়। সেখানের আরেকটি অংশে, যেখানে ফ্রিজ রয়েছে সেগুলো সাবধানতার সঙ্গে দেখা হচ্ছে। সেখান থেকে আরও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

ছয়তলা ওই ভবনের প্রতিটি তলায় চারটি করে ইউনিট রয়েছে। তার মধ্যে পঞ্চম তলার দুটি ইউনিটে সন্দেহভাজন জঙ্গি আবদুল্লাহ পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকতেন। ষষ্ঠ তলার অর্ধেক অংশে তিনি কবুতর পুষতেন। বাকি খোলা স্থানও কবুতর রাখতে ব্যবহার করা হত।

বৃহস্পতিবার ষষ্ঠ তলার একটি অংশে তল্লাশি চালিয়ে ২৩টি ফ্রিজ পায় র‌্যাব।

এর আগে, টাঙ্গাইলের এলেঙ্গায় সোমবার একটি বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ‘জেএমবির জঙ্গি’ দুই ভাইকে ড্রোন ও দেশীয় অস্ত্রসহ আটকের পর তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে সেদিন মধ্যরাতে মিরপুরের ওই বাড়িতে অভিযান শুরু করে র‌্যাব।

ভবনটি থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয়া হয় পাশের একটি স্কুলে। র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়, ওই বাড়ির পঞ্চম তলায় ‘দুর্ধর্ষ জঙ্গি’ আবদুল্লাহ, তার দুই স্ত্রী, দুই সন্তান ও দুই কর্মচারী আছেন।

মঙ্গলবার সারাদিন র‌্যাবের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করে আবদুল্লাহকে আত্মসমর্পণে রাজি করানোর চেষ্টা চলে। সন্ধ্যায় জানানো হয়, আবদুল্লাহ আত্মসমর্পণ করতে রাজি হয়েছেন। কিন্তু রাত পৌনে ১০টার দিকে ওই ভবনে বিকট শব্দে তিনটি বিস্ফোরণ ঘটে।

বুধবার সকাল থেকে সারাদিন তল্লাশি চালিয়ে বিকালে পঞ্চম তলার ওই বাসা থেকে সাতজনের খুলি ও পোড়া অঙ্গপ্রত্যঙ্গ পাওয়ার কথা জানায় র‌্যাব।

পরদিন ষষ্ঠ তলার একটি অংশে পাওয়া যায় ১০টি উচ্চ ক্ষমতার বোমা, বিভিন্ন রাসায়নিক দিয়ে তৈরি বিস্ফোরক, ৩০টি বোতল বোমা, ৫০টি দেশীয় অস্ত্র এবং সালফার, ১০ কেজি গান পাউডারসহ বিভিন্ন বোমা তৈরির সরঞ্জাম।

র‌্যাব অভিযান শুরুর পর ভবনের অন্য ফ্ল্যাটের বাসিন্দারা তালা মেরে চলে গিয়েছেন। নিরাপত্তার স্বার্থে পঞ্চম ও ষষ্ঠ তলার তল্লাশি শেষে ওই ফ্ল্যাটগুলোতেও তল্লাশি করা হবে বলে মুফতি মাহমুদ জানান।


Print pagePDF pageEmail page
Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*