শিরোনাম

অপরাধীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ায় ধর্ষণ মামলার শিকার রূপসী পাড়া চেয়ারম্যান

লামা প্রতিনিধি: আদালত কর্তৃক ওয়ারেন্ট জারী হয় নাই। গোয়েন্দা সংস্থাকে তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে মাত্র। গণমাধ্যম কর্মীদের রহস্য উদঘাটনের আপ্রাণ চেষ্টায় ঘটনার আদৌপান্ত উম্মোচিত হলো অবশেষে। নিয়মানুযায়ী সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীর বক্তব্য গণমাধ্যমে প্রকাশ করা যায় না এরূপ বিধান থাকলেও। গণমাধ্যম কর্মীদের সাক্ষাতে মুখ খুললে জানা যায়, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি জামাত সমর্থিত প্রতিপক্ষের প্ররোচনায় আওয়ামী সংগঠনের নিবেদিত প্রানের দীর্ঘ রাজনৈতিক, সামাজিক ও পারিবারিক মান সম্মান ক্ষুন্ন করে মিথ্যা, ষড়যন্ত্রমূলকভাবে চৌকিদারের বউকে (রুবি আক্তার) ধর্ষণের মামলা করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন,বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের দুই বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক ছাচিংপ্রু মার্মার বিরুদ্ধে।

বান্দরবানের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে তার বিরুদ্ধে এক নারীর ধর্ষণ মামলা দায়েরের প্রেক্ষিতে শুক্রবার সকালে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় মামলায় উল্লেখিত স্বাক্ষী ও পরিষদের সদস্য শফিউল আলম ও আবু তাহেরসহ মামলার অপর বিবাদী আবদুল মন্নান উপস্থিত ছিলেন।

চেয়ারম্যান ছাচিংপ্রু মার্মা আরাে জানান, প্রকৃত পক্ষে তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার। ধর্ষণ মামলার বাদীর কথিত স্বামী মাে. বেলাল
উদ্দিন পরিষদের একজন চৌকিদার হন। ২০২০ সালে করােনা ভাইরাস সংক্রমণকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রী মানবিক সহায়তা বাবদ ২৫০০ টাকা হারে মােবাইলের মাধ্যমে স্থানীয়দের প্রদান করেছিলেন সরকার। চৌকিদার বেলাল উদ্দিন কৌশলে অসংখ্য মানুষের টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেন। এ বিষয়ে ভুক্তভােগীরা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও লামা থানায় অভিযােগ করলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণ করেন। পাশাপাশি সাংবাদিকরা এ বিষয়ে তদন্ত করে পত্রিকায় সংবাদও প্রকাশ করেন। পরবর্তীতে তার বিরুদ্ধে মামলা হওয়ায় বিধি মােতাবেক পরিষদের সিদ্ধান্ত ক্রমে তাকে চৌকিদারের পদ থেকে সাময়িকভাবে বহিস্কার করা হয়।

বাদীর স্বামী বেলাল উদ্দিন কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে মামলা করার বিষয়ে চেয়ারম্যান হিসেবে সাচিং প্রু মার্মাকে দায়ী করেন এবং মামলা থেকে তাকে খালাস ও স্বপদে বহাল করার বিষয়ে সার্বিক সহযােগিতা চান। বিষয়টি যেহেতু আইনী, সেহেতু চেয়ারম্যান সহযােগিতা করতে অপারগতা প্রকাশ করায় চৌকিদার বেলাল উদ্দিন সাচিং প্রু মার্মার বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত হয়। এক পর্যায়ে বিএনপি জামাত সমর্থিত প্রতিপক্ষের যােগসাজসে আওয়ামী সমর্থিত চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযােগ তুলে স্ত্রী (রুবি আক্তার) কে বাদী করে ৬ মে ২০২১ আদালতে একটি সাজানাে ধর্ষণ মামলা করে যা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্য প্রনোদিত ও বানোয়াট।

চেয়ারম্যান সাচিং মার্মা আরো বলেন, তার ঘরে স্ত্রী, পুত্র ও কন্যা সন্তান রয়েছে, ছেলে মেয়েরা ভাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লেখা পড়া করছে। একজন চৌকিদারের বউকে ধর্ষণ করার মতো মন মানসিকতা তার নাই। ধর্ষণের সময়কাল উল্লেখ করায় সকাল ৯/১০ টা এই সময় চেয়ারম্যানের বাড়ীতে ঘটনার স্থান উল্লেখ করায় তা সম্পূর্ণ মিথ্যা বলে স্পষ্ঠ প্রতিয়মান হয়, কেননা ঐ সময় তার ঘরে লকডাউন চলাকালে স্ত্রী সন্তানরাই অবস্থান করেন। এমন সময় ধর্ষণের মতো ঘটনা সংঘটিত হওয়া যা অকল্পনীয় বলে মনে করেছেন অনেকেই।

এদিকে মামলায় উল্লেখিত স্বাক্ষী ও পরিষদের সদস্য শফিউল আলম মামলার বাদী কর্তৃক রুপসীপাড়া ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালতে
দায়েরকৃত মামলার অভিযােগের বিষযে আমি কিছু জানি না। না জানিযে মামলায় তাকে স্বাক্ষী রাখা হয়েছে বলে তিনি এর তীব্র বিরোধিতা করেন।
এ প্রসঙ্গে তিনি আরাে বলেন, বাদী অন্য জনের স্ত্রী ও তিন সন্তানের মা হওয়া সত্বেও চৌকিদার মাে. বেলাল উদ্দিনের সাথে দীর্ঘদিন স্বামী স্ত্রী (কন্টাক্ট ম্যারেজ) হিসেবে অনৈতিকভাবে বসবাস করে আসছেন।

এসব অনৈতিক কারণে ইতিমধ্যে মামলার বাদী ওই নারীকে এলাকাবাসী সমাজ হতে বাহির করেছেন।এদিকে পরিষদের সদস্য আবু তাহের বলেন, মামলা খালাসের বিষয়ে চৌকিদার বেলাল উদ্দিন ও তার কথিত স্ত্রীকে নিয়ে বেশ কযেকবার আমার কাছে এসেছিলেন এবং চেয়ারম্যানের সহযােগিতা চেযেছিলেন।

চেয়ারম্যান সহযােগিতা না করায় ওই নারী ক্ষিপ্ত হযে মিথ্যা অভিযােগ তুলে নারী নির্যাতন আইনে চেয়ারম্যানসহ দুই জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন বলে শুনেছি। এদিকে মামলার বাদী ও তার কথিত স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করার অনেক চেষ্টা করা হলেও তিনি কোন কথা বলতে রাজী হন নাই।

এ বিষযে লামা থানা পুলিশের ভারপ্লাপ্ত কর্মকর্তা মােহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, থানার দরজা সবার জন্য খােলা, এখানে সবাই সমান। তাছাড়া অভিযােগ নিয়ে ওই নারী কখলাে থানায় আসেনি। পুলিশ মামলা নেয়নি-এ -একথা মােটেও সত্য নয়।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language