শিরোনাম

লকডাউনে অনাহারীদের মাঝে আহার ঝোগাতে সচেষ্ট ছিলেন প্রিন্স সেন

সাইফুল ইসলাম: বান্দরবান

আজ ১০ মে ২০২১ রোজ সোমবার সকাল ৯টা হতে তার বসতবাড়ীর উঠোনে বান্দরবান পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের বিভিন্ন ব্লকে তার ত্রাণ সামগ্রী স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবীদের মাধ্যমে পৌছিয়ে দেয়া হয়।
গত বছরের করোনা সংকটে লকডাউন চলাকালে বান্দরবানে বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বান্দরবানবাসীদের মানবিক সহায়তা প্রদান করলেও এবারে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে তেমন দু’য়েকটি সংগঠন ছাড়া তেমন মানবদরদী সংগঠকের দেখা মেলেনি।

তবে বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের অর্থায়নে ১৪৫০০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি চাউল, ১ কেজি ডাল, ১ কেজি ভোজ্য তেল, প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা ইউনিয়ন পরিষদে গ্রামবাসীর জন্য জনপ্রতি ৫শত টাকা ১০ কেজি চাল, পৌরসভা গুলোতে ১০ কেজি চাল, ১ কেজি ভোজ্য তেল, ১ কেজি ডাল, জেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে প্রায় ৭/৮শত টাকার চাল, ডাল, তেল, ছোলাবুট, চিনি, মুড়ি ইত্যাদি সহ নানান ধরনের ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। সেনাবাহিনীর পক্ষ হতে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ চোখে পড়েছে যা প্রশংসনীয়। এপেক্ষ ক্লাবের ত্রাণ বিতরণ চোখে পড়েছে গত কয়েকদিন পূর্বে।

তবে চোখে পড়েনি কোন ব্যক্তিগত ভাবে ত্রাণ বিতরণে কাউকে। তবে এবারে বাংলাদেশ আওয়ামী যুব প্রজন্মলীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ চট্টগ্রাম বিভাগীব সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ বান্দরবান পার্বত্য জেলার আহবায়ক ডাঃ প্রিন্স সেন নিজ উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণে স্থানীয় জন সাধারনের মাঝে এগিয়ে এলেন।

এ বিষয়ে ত্রাণ দাতা ডাঃ প্রিন্স সেনের সাথে গণমাধ্যম কর্মীরা যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ভাইরে লকডাউন চলাকালীন সময়ে রাস্তায় বের হলে যেন দরিদ্র কিছু মানুষ তাকে ঘুরে ফিরে পথ আগলে হাত পাতে। এতে তিন প্রায়শ সহায়তা করে থাকেন। তিনি এমন আশংকা প্রকাশ করছেন যে, গত বারের লকডাউনে বিতরণ হওয়া ত্রাণের পরিমাণ ছিল বেশী। এবারে লকডাউনে বিতরণ হওয়া ত্রাণের পরিমাণ খুবই কম বলেই এখনো দরিদ্র মানুষের হাহাকার দেখেই তিনি নিজ উদ্যোগে ত্রাণ বিতরণে এগিয়ে এলেন বলে জানিয়েছেন। আগামী সৃষ্টিকর্তা সহায় হলে সকলে মিলে আরো ত্রাণ বিতরণ সম্ভব বলে মনে করেন।


Print pagePDF pageEmail page

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

See In Your Language